আরিফ হোসেন হারিছ সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি:

পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে
মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখানে সরকারী ঐতিহ্যবাহী বালুরচর বাজার কোরবানির পশুর হাট বসবে ৭ জুলাই বৃহস্পতিবার উপজেলার বালুচর ইউনিয়নের বালুরচর বাজারের পশ্চিম পাশে কবরস্থান সংলগ্ন মাঠে পশুর হাটে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবে কেনাবেচা।

ঈদুল আজহার বাকি আর মাত্র সপ্তাহ। প্রতি বছর এই ঈদকে কেন্দ্র করে জমে ওঠে কোরবানির পশুর হাট।এবার রমজানের পর থেকে গরুর দাম বাড়তি। কোরবানির হাটেও সেই প্রভাব থাকবে। পাশাপাশি সিলেট-সুনামগঞ্জ আর উত্তরাঞ্চলের বন্যার প্রভাব পড়বে পশুর হাটে।

সাধারণত ঈদের ১০-১৫ দিন আগে থেকে স্থায়ী ও অস্থায়ী পশুর হাটগুলো সাজানোর প্রস্তুতি নেন ইজারাদাররা।
বালুরচর বাজার স্থায়ী পশুর হাটে শুরু হয়েছে সেই প্রস্তুতি; চলছে শেষ মুহূর্তের তোড়জোড়। বাঁশ ও ত্রিপল দিয়ে তৈরি হচ্ছে বিশাল ছাউনি। হাটের ভেতরে রাস্তা তৈরী করা হচ্ছে। কোথাও কোথাও অপ্রয়োজনীয় কাদামাটি অপসারণ করা হচ্ছে। একই সঙ্গে গণশৌচাগার পরিস্কার করে আশপাশে মাটি ফেলে তা ব্যবহার উপযোগী করার কাজও চলছে।

ঐতিহ্যেবাহী বালুচর বাজারের ইজারাদার সাবেক মেম্বার মোঃ নাসির মোল্লা
প্রতিবারের মতো এবারও প্রস্তুতি নিচ্ছি। কোরবানির হাট নিয়ে কোনো বিষয়েই গাফিলতির সুযোগ নেই। হাটে ব্যবসায়ীদের টাকা জমা দেওয়ার ভোগান্তি কমাতে এবার কয়েকটি হাসিল কাউন্টার তৈরি করা হবে। এছাড়া হাটে অসংখ্য স্বেচ্ছাসেবী কাজ করবেন। গত কোরবানিতে হাসিল ছিল শতকরা দুই শতাংশ।একইভাবে এবারও হাসিল আদায় করা হবে।’তিনি বলেন, ‘হাটের পশুর চিকিৎসা আর ব্যবসায়ীদের তাৎক্ষণিক চিকিৎসার ব্যবস্তা করা হয়েছে।
পশু চিকিৎসকসহ বসবেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকও। এছাড়া জাল টাকার লেনদেন প্রতিরোধে নেওয়া হবে ব্যবস্তা।’
পাইকারদের থাকা খাওয়া এবং ২৪ ঘন্টা জেনারেটরের ব্যবস্থা থাকবে।