আরিফ হোসেন হারিছ সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি:

মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখান থানার অফিসার ইনচার্জ একে এম মিজানুল হক এর সহযোগিতায় খুঁজে পেল ব্রেন ষ্ট্রোক করা মানসিক রোগী (৭০) বছরের নাসিমা বেগম নামের এক বৃদ্ধা মহিলার স্বজনদের।

জানাযায় গত ২৪ জুলাই দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার পারগেন্ডারিয়ার খেজুরবাগ (টাইলস মসজিদ)এলাকা থেকে হারিয়ে যায়।গত ২৫ জুলাই বিকালে সিরাজদিখান বাজার গোডাউন ঘাট এলাকায় এই বৃদ্ধা মহিলাকে ঘোরাঘুরি করতে দেখে সিরাজদিখান বাজার গোডাউন ঘাট এলাকার বাসিন্দা সিরাজদিখান বাজার বিপ্লব হোটেলের মালিক মোঃ বিপ্লব মিয়ার স্ত্রী বাসায় নিয়ে আসে।মোঃ বিপ্লব মিয়া ও তার স্ত্রী বিভিন্ন স্থানে বৃদ্ধার স্বজনদের খোজাখুজি করে না পেয়ে ১ আগস্ট সিরাজদিখান থানার অফিসার ইনচার্জ একে এম মিজানুল হক কে এবিষয়ে অবহিত করলে ওসি মিজানুল হক তাৎক্ষণিকভাবে বিভিন্ন স্থানে খোঁজ-খবর নিয়ে নিশ্চিত হন এই বৃদ্ধা দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার পারগেন্ডারিয়ার খেজুরবাগ (টাইলস মসজিদ)এলাকার জামাল মিয়ার ভাড়াটিয়া।ওসি মিজানুল হক দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার মাধ্যমে স্বজনদের সংবাদ দিলে স্বজনরা সিরাজদিখান থানায় এসে বৃদ্ধা নাসিমা বেগমকে নিয়ে যায়।

এ-সময় বৃদ্ধা নাসিমা বেগমের বড় ছেলে নাসির উদ্দিন জানান আমার মা ব্রেন ষ্ট্রোক করা মানসিক রোগী গত ২৪ জুলাই আমাদের বাসা থেকে হারিয়ে যায় আমরা বিভিন্ন স্থানে খোজাখুজি করি আমার মার ছবি দিয়ে পোস্টার করি দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানাকেও জানাই অবশেষে সিরাজদিখান থানার অফিসার ইনচার্জ একে এম মিজানুল হক এর সংবাদ পেয়ে সিরাজদিখান থানায় এসে আমার মাকে ফিরে পাই।সিরাজদিখান থানার অফিসার ইনচার্জ একে এম মিজানুল হক কে ধন্যবাদ জানাই আমি তার সুস্বাস্থ্য ও মঙ্গল কামনা করছি।

সিরাজদিখান থানার অফিসার ইনচার্জ একে এম মিজানুল হক জানান সিরাজদিখান বাজার বিপ্লব হোটেলের মালিক মোঃ বিপ্লব মিয়া ১ আগস্ট দুপুরে এবিষয়টি অবগত করেলে আমি তাৎক্ষণিকভাবে বিভিন্ন থানা এলাকায় যোগাযোগ করে নিশ্চিত হই এই বৃদ্ধা মহিলা দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার পারগেন্ডারিয়ার খেজুরবাগ (টাইলস মসজিদ)এলাকার।তার স্বজনদের সংবাদ দিলে স্বজনরা এসে নিয়ে যায়।

আপনার মতামত দিন