সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি: মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে হেফাজত, পুলিশ ও আওয়ামী লীগ ত্রিমুখী সংঘর্ষে শতাধিক আহত হওয়ার ঘটনায় ৬১৫ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মঙ্গলবার ৩০শে মার্চ রাতে সিরাজদিখান থানার উপ-পরিদর্শক রিমন হোসাইন বাদী হয় সংঘর্ষে আহত হেফাজতের নায়েবে আমির মধুপুর পীর আব্দুল হামিদ এর দুই ছেলে ওবায়দুল্লাহ কাশেমী (৪০) এবং আব্দুল্লাহ (৩৫) সহ ১৫ জনের নাম উল্লেখসহ ৫/৬ শত জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করে এ মামলা দায়ের করেন।

সিরাজদিখান থানার ওসি (তদন্ত) কামরুজ্জামান জানান, ১৫ জনকে এজাহার নামীয় আসামী এবং ৫/৬শত জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

উল্লেখ্য মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে হেফাজত ইসলাম ও পুলিশ, ছাত্রলীগ, যুবলীগের সঙ্গে সংঘর্ষে শতাধীক আহত হয়। গত রোববার বেলা ১২ টার দিকে উপজেলার কেয়াইন ইউনিয়নের বড় শিকারপুর এলাকায় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় ঘটনারস্থলে রণক্ষেত্রে পরিনতি হয়।এতে সিরাজদিখান থানার ওসি এস.এম জালাল উদ্দিন, এসআই সেকেন্দার আলী, এ.এস.আই রাজু আহমেদ, হেফাজতর ইসলামের নায়েবে আমির ও মধুপুর পীর আব্দুল আব্দুল হামিদ ও হাফেজ মাওলানা আহম্মেদ, সিরাজদিখান উপজেলা ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদক তানভীর আহমেদ দিশার,লতব্দী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক নাজমুল ইসলাম সহ ছাত্রলীগ, যুবলীগের শতাধিক নেতা-কর্মী আহত হন।