স্টাফ রিপোর্টার,

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান বাজারে অবস্থিত একটি স্বর্ণের দোকানে দুর্ধর্ষ চুরির ঘটনা সংঘটিত হয়েছে। গত মঙ্গলবার গভীর রাতে সিরাজদিখান বাজারে অবস্থিত ঊষা স্বর্ণ শিল্পালয় নামে। স্বর্ণের দোকানের টিনের চাল কেটে দুর্ধর্ষ এ চুরির ঘটনাটি সংঘটিত হয়। দোকানটির মালিক কৃষ্ণ পালের ছেলে কাজল পাল বলেন, সকালে দোকান খুলে আমার বাবা দেখেন সবকিছু এলোমেলো, ২ টি সিন্ধুক ভাঙ্গা এবং চালের টিন কাটা। পরে আমরা এসে দেখি দোকানের ২ টি সিন্ধুক ভাঙা। সিন্ধুকে ২০ ভরি স্বর্ণ, ১০০ ভরি রুপা, ৩ লক্ষ ৬০ হাজার টাকার নগদ ছিলো। চোরেরা আমাদের সর্বশান্ত করে দিয়ে গেছে। পুলিশ এসে দেখে গেছে। আমরা আমাদের চুরি যাওয়া স্বর্ণালংকা উদ্ধারসহ চোরদেন শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনার দাবী জানাই। এদিকে থানা পুলিশের নাকের ডগায় সিরাজিদখান বাজারের স্বর্ণের দোকানে চুরির ঘটনা সংঘটিত হওয়াকে কেন্দ্র করে বাজার ব্যবসায়ীরা প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন। তারা বলছেন, থানা পুলিশ ও বাজার কমিটির পাহারাদারদের অবহেলায় বাজারে এরকম একের পর এক চুরির ঘটনা ঘটে চলেছে। এ যাবৎকাল পর্যন্ত বাজারে যে কয়টি চুরির ঘটনা সংঘটিত হয়েছে সেগুলোর কোনটিরও সুষ্ঠ তদন্ত হয়নি। এমনকি এ সেসব ঘটনায় কাউকেই আটক করতে পারেনি পুলিশ। ফলে চুরির ঘটনা দিন দিন বেড়েই চলেছে। এব্যপারে সিরাজদিখান বাজার বনিক সমিতির সাধান সম্পাদক মোঃ মোতাহার হোসেন জানান, আমি সকালে খবর পেয়ে ওই স্বর্ণের দোকানটি পরিদর্শন করেছি। এসে দেখি চালের টিন কেটে চোরেরা দোকানে ঢুকে দুটি সিন্ধুক থেকে স্বর্ণালংকার নগদ টাকা নিয়ে গেছে। কিন্তু বাজারের ভিতরে কিভাবে এরকম চুরি হলো সেটা ভাবতেই অবাক লাগছে। আমি থানা পুলিশকে জানিয়েছি তারা এসে দেখে গেছে। তারা যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলে জানিয়েছে। সিরাজদিখান থানার ওসি একেএম মিজানুল হক বলেন, ঘটনাটি শুনেছি। এখানের অবস্থা অন্যান্য জায়গার চেয়ে অনেক ভালো। আমরা উপজেলার সমূহের বনিক সমিতির সাথে মতবিনিময় করছি।যাতে বাজারে পাহারার ব্যাবস্থা আরো জোরদার করা যায়।