আরিফ হোসেন হারিছ সিরাজদিখান (মুন্সিগঞ্জ) প্রতিনিধি:

মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখানে মামলা তুলেনিতে ভুক্তভোগীকে ইউপি সদস্যর হুমকি-ধামকির অভিযোগ উঠেছে ।এঘটনায় গেলো মঙ্গলবার রাতে সিরাজদিখান থানায় একটি সাধরণ ডায়েরি করেছে ইউপি সদস্য দীন ইসলামের বিরুদ্ধে ভুক্তভোগী মো.হৃদয় শেখ।
মামলা ও ভুক্তভোগী সূত্রে জানা যায়, গেলো ২৩ মার্চ বিকেলে মামলার বাদি উপজেলার মধ্যপাড়া ইউনিয়নের কাকালদী গ্রামের আওলাদ শেখের ছেলে হৃদয় শেখ ও তার চাচতো ভাই সোহরাব শেখের ছেলে প্রবাসী ফেরত মামুন শেখ সাথে বসত বাড়ীর সীমানা নিয়ে বিরোধ মিমাংসা করা লক্ষে মাপা হয়। বাদীর ৭ ফুট জায়গা দখল করে রাখা সত্ত্বেও তার ঘরের ভিতর ১ ফুট জায়গার জন্য ঘর ভাঙ্গার নির্দেশ দেয় স্থানীয় ইউপি সদস্য দীন ইসলাম। হৃদয় শেখ এ বিচারের রায় না মানায় ইউপি সদস্যের সাথে কথা-কাটাকাটি হয়। ইউপি সদস্য গালাগালি করে সালিশের ভিরত বাদীকে পানির বোতল দিয়ে মারধর করে। এঘটনার পর ক্ষিপ্ত হয়ে ইউপি সদস্য তার আত্মীয় স্বজনদের নিয়ে আধা ঘন্টা পর আবার স্থানীয় মাদবরদের সামনে হৃদয় শেখকে তার বসত বাড়ীতে মারধর করে রক্তাক্ত করলে জীবন বাঁচাতে দৌড়ে পাশের বাড়ী রুহুল আমিনের বাসায় আশ্রয় নেয়। হৃদয়ে শেখের বোন লতা (৩০) ও মা বাঁচাতে এগিয়ে আসলে তাদেরও বেধরক মারধর ও লাঞ্চিত করে স্থানীয় ইউপি সদস্য দীন ইসলাম শেখসহ তার ও তার ভাই সোলায়মান শেখ, জয়নালের ছেলে ইব্রাহীম, হাসেম শেখের ছেলে দুলাল শেখ ও আলউদ্দিন শেখের ছেলে বাবু শেখ।
ডায়েরি সূত্রে জানা যায়, গেলো ৬ এপ্রিল মামলার তদন্তে জেলা ডিবি পুলিশ আসে। এ তদন্ত করাকে কেন্দ্র করে ফের ইউপি সদস্য দীন ইসলামসহ তার লোকজন হৃদয়কে হুমকি ধামকি প্রদান করে এবং দ্রুত মামলা তুলে নিতে বলে।

ভুক্তভোগী মোহাম্মদ হৃদয় শেখ বলেন, আমি ইউপি সদস্য দ্বীন ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা করায় আমারে তিনি প্রতিনিয়ত হুমকি-ধামকি এবং তার আত্মীয়-স্বজন হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছে। এ বিষয়ে আমি সিরাজদিখান থানায় একটি লিখিত ডাইরি করেছি। আমি এর বিচার চাই। সে একজন জনপ্রতিনিধি হয়েছে এরকম অত্যাচার করতাছে এটা সইতে পারছিনা।

ইউপি সদস্য দীন ইসলাম এ বিষয় জানতে চাইলে তিনি বলেন, সম্পূর্ণ মিথ্যা কথা। আমি হৃদয়কে কিছু বলিও নাই। জিগাইও নাই।

মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা মুন্সীগঞ্জ ডিবি পুলিশের এসআই এজাজ বলেন, মানলার তদন্ত চলমান রয়েছে। ইনশাআল্লাহ বাদী
ন্যায় বিচার পাবে।

সিরাজদিখান থানার ভারপ্রপ্ত কর্মকর্তা মো. আজগর হোসেন বলেন, ডায়েরি হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে সত্যতা পাওয়া গেলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।