আরিফ হোসেন হারিছ সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানের ধলেশ্বরী নদীর ভাঙন রোধে এলাকাবাসী মানববন্ধন করেছে। উপজেলার বালুচর ইউনিয়নের চান্দের চর ও খাসকান্দী গ্রামবাসীর আয়োজেন যুব সমাজের উদ্যোগে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। সোমবার বেলা ১১ টা থেকে ১২ টা পর্যন্ত ঘটাব্যাপী চান্দের চর নদীর পাড়ে মানববন্ধনে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার ২ সহস্রাধীক নারী-পুরুষ ও শিক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করেন।
মানববন্ধন বক্তারা বলেন, দীর্ঘ একযুগেও বিভিন্ন দপ্তের যোগাযোগ করেও তারা পরিত্রান পাচ্ছেন না। যুব সমাজের উদ্যোগে এলাকাবাসীর আর্থিক সহযোগিতায় নদী ভাঙন রোধে বাঁশ লাগিয়ে চেষ্টা করছে তারা। স্থায়ী সমাধানের লক্ষে সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তরের দৃষ্টি আকর্ষণ করে তারা আরো বলেন, এক কি.মি দীর্ঘ ও প্রস্থ্য ২ শত মিটারের বেশি জমি ভাঙনে নদীত বিলীন হয়েছে। ধীরে ধীরে ভাঙতে ভাঙতে এখন জনবসতি এলাকার কাছাকাছি পৌঁছেগেছে। তিন ফসলী জমি বেশির ভাগ নদী গর্ভে। তাদের দাবী এখনই দ্রুত ব্যবস্থা না নিলে বসতবাড়ি, স্কুল, মাদরাসা, মসজিদ খেয়া ঘাট ও ২ টি হাটবাজার অচিরই বিলীন হয় যাবে। এ এলাকায় ৩ টি ওয়ার্ডের প্রায় ৩০ হাজার মানুষ বসবাস করে। তারা কোথায় যাবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন খাসকান্দী মাদরাসার পরিচালক মাওলানা মোহাম্মদ আমির হোসাইন, ২ নং ইউপি সদস্য আলেকচান সজিব, যুব সমাজের সদস্য সিরাজুল ইসলাম, মো.সামসুদ্দিন, মো. সওদাগর, মো. আজগর আলী, রুবেল হোসেনসহ দলমত নির্বিশেষে আরো অনেকে।
উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা সৈয়দ ফয়েজুল ইসলাম এ বিষয়ে বলেন, আমি সরোজমিনে চান্দের চরের নদী ভাঙন এলাকা পরিদর্শণ করেছি। জেলা প্রশাসক বরাবর দুই দফায় লিখিত ভাবে গত ২২-০৯-২০২০ সালে ও ০৩-০৮-২০২১ সালে জানিয়েছি। তার অনুলিপি মাননীয় সংসদ সদস্য ও পানি উন্নয়ন বোর্ডে দিয়েছি। পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাদের সাথে টেলিফোন কথা বলেছি। তারাও পরিদর্শণ করেছেন। আশা করছি স্থায়ী সমাধানের লক্ষে পানি উন্নয়ন বোর্ড ব্যবস্থা নিবেন।

আপনার মতামত দিন