আরিফ হোসেন হারিছ সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি:

মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখানে দুর্ধর্ষ চুরি ঘটনায় সিরাজদিখান থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে ভুক্তভোগী উপজেলার লতব্দী ইউনিয়নের খিদিরপুর গ্রামের মৃত খালেক মিয়ার ছেলে মোঃ আতাউর রহমান (৬৬)।
সিরাজদিখান থানাধীন খিদিরপুর সাকিনস্থ একটি দোতলা বিল্ডিং এর নিচ তলায় পরিবার নিয়ে বসবাস করেন মোঃ আতাউর রহমান।

অভিযোগ সুত্রে জানাযায় ইং ৩০/০৩/২০২২ তারিখ দিবাগত রাত ১২.৩০ ঘটিকার সময় রাতের খাবার খেয়ে পরিবারের সবাই ঘুমিয়ে পরলে এবং একই তারিখ দিবাগত রাত সাড়ে ৩ ঘটিকার সময় আতাউর রহমান প্রকৃতির ডাকে ঘুম ভাঙ্গলে রুমের লাইট জ্বালিয়ে দেখে যে ঘরের ভিতরের জামা কাপড় ছড়ানো ছিটানো অবস্থায় পড়ে আছে। আতাউর রহমান তাৎক্ষনিক স্ত্রীকে ডেকে নিয়ে ঘরের ভিতরে ভালোভাবে দেখতে গেলে উঠার শব্দ পেয়ে একজন লোক দ্রুত রুম থেকে দৌড়ে বারান্দার খোলা দরজা দিয়ে পালিয়ে যায়। তখন আতাউর রহমান চোর চোর বলে ডাক চিৎকার করিলে আশপাশের লোকজন আগাইয়া আসলে দেখতে পাই যে বসত ঘরের উত্তর পার্শ্বে শয়ন কক্ষের জানালার গ্রীল কাটা অবস্থায় রহিয়াছে। পরবর্তীতে স্থানীয় লোকজন আতাউর রহমানের শয়ন কক্ষে আসিয়া দেখতে পাই যে শয়ন কক্ষে থাকা কাঠের আলমারির খোলা এবং তাহার ভিতরে থাকা ড্রয়ারে বিভিন্ন ধরনের স্বর্ণের গহনা প্রায় ৩০ ভরি, যাহার মূল্য অনুমান ২১,০০,০০০/- টাকা এবং নগদ ১৫,০০০/- টাকা, এবং স্ত্রীর ব্যবহৃত একটি স্যামসাং মোবাইল ফোন যাহার মূল্য ২৫,০০০/- টাকা নিয়া গিয়াছে। ধারনা করা যায় ৩0/০৩/২০২২ তারিখ দিবাগত রাত ১২.৩০ ঘটিকা হইতে একই তারিখ রাত ০৩.৩০ ঘটিকার মধ্যে যেকোন সময় অজ্ঞাতনামা চোর/চোরেরা বসত ঘরের জানালার গ্রীল কাটিয়া বসত ঘরে প্রবেশ করিয়া চুরি করিয়াছে। পরবর্তীতে উক্ত বিষয়টি স্থানীয় লোকজনের সহিত আলোচনা করিয়া থানায় আসিয়া অভিযোগ দায়ের করেন।

এবিষয়ে সিরাজদিখান থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ বোরহান উদ্দিন জানান অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।