আরিফ হোসেন হারিছ সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি:

আসন্ন মুন্সিগঞ্জ জেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ব্যস্ত হয়ে উঠেছেন প্রার্থীরা। স্ব-স্ব অবস্থান থেকে প্রার্থীরা জেলা পরিষদের সদস্য পদ প্রার্থী হিসেবে নিজেদের এরই মধ্যে জানান দিতে শুরু করেছেন।এছাড়া কেউ কেউ সদস্য প্রার্থী হিসেবে প্রচার প্রচারণাও চালিয়ে যেতে শুরু করেছেন। জেলার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ উপজেলার মধ্যে সিরাজদিখান অন্যতম। এ উপজেলার রাজনীতি যেমন সরব, তেমনি রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গের উন্নয়ন মুখী কার্যক্রমও বেশ চাঙা। ফলে এ উপজেলার উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অন্যান্য উপ‌জেলার তুলনায় দ্বিগুণ। জেলা পরিষদ নির্বাচনে সদস্য হয়ে উপজেলার উন্নয়নের ধারাকে আরো এক ধাপ বেগবান করতে ইতোমধ্যে উপজেলার বিভিন্ন ওয়ার্ডে বেশ কয়েকজন ইচ্ছা পোষন করে সদস্য প্রার্থী হিসেবে মাঠে নেমেছেন। তাদের মধ্যে মোহাম্মদ মোক্তার হোসেন একজন। তিনি সিরাজদিখান ১নং ওয়ার্ড তথা চিত্রকোট, শেখরনগর, রাজানগর ও কেয়াইন ইউ‌নিয়ন নি‌য়ে গ‌ঠিত ওয়া‌র্ডের সদস্য পদ প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দিয়ে মাঠে নেমেছেন। নিজেকে জেলা পরিষদের সদস্য পদ প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দিয়ে নির্বাচনী এলাকার বিভিন্ন স্থানে গণসংযোগ ও প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন তিনি। প্রার্থী মোহাম্মদ মোক্তার হোসেন উপজেলার চিত্রকোট ইউনিয়নের গোয়ালখালী গ্রামের প্রয়াত আয়নাল খানের ছেলে। তি‌নি একজন শিল্পপতিও ব‌টে। পাশাপাশি তিনি সাংবাদিকতার সাথে নিজেকে জড়িয়ে রেখে সমাজ এবং রাষ্ট্রের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছেন। তি‌নি সিরাজ‌দিখা‌ন প্রেসক্লা‌বের নব‌নির্বা‌চিত সাধারণ সম্পাদ‌কের দা‌য়িত্ব পালন কর‌ছেন । এছাড়া তিনি একজন তরুন উদ্দোক্তা (ব্যবসায়ী)। মোহাম্মদ মোক্তার হোসেন বিভিন্ন সামাজিক, ধর্মীয় ও অরাজনৈতিক সামাজিক সংগঠনের সাথে নিজেকে সম্পৃক্ত রেখে সমাজের নানামুখী উন্নয়নে সহায়ক ভূমিকা রেখে আসছেন। ক‌রোনাকালীন সম‌য়ে তি‌নি জীব‌নের ঝু‌কি নি‌য়ে শুধু সংবাদ সংগ্রই ক‌রেন‌নি, তি‌নি সমা‌জের পিছি‌য়ে পড়া কম ভাগ‌্যবান মানু‌ষদের পা‌শে দাঁড়ি‌য়ে‌ছেন । একারণে স্থানীয় ভাবে তার ব্যাপক জণপ্রিয়তা রয়েছে । সামাজিক যে কোন উন্নয়ন সাধণে স্বচ্ছ ব্যক্তিত্ব এবং স্বচ্ছলতার বিকল্প নেই। একজন জণপ্রতিনিধি যদি স্বচ্ছ ব্যক্তিত্ব ও পারিবারিক, আর্থিকভাবে স্বচ্ছল থাকেন তার দ্বারা কোন অন্যায় বা অন্যের ন্যায্য অধিকার হরন কোন ক্রমেই সম্ভব নয়। মোক্তার হোসেন স্বচ্ছ ব্যক্তিত্ব এবং স্বচ্ছলতা থেকে জেলা পরিষদ সদস্য হয়ে নির্বাচনি এলাকার মানুষের উন্নয়নে অংশিদার হতে আগ্রহ প্রকাশ ক‌রে‌ছেন । তাছাড়া তি‌নি কখনও অন‌্যা‌য়ের সা‌থেও আ‌পোষ ক‌রেন নি । এ বিষয়ে মোহাম্মদ মোক্তার হোসেন বলেন, মানুষের ও দেশের কল্যাণে কাজ করতে পারাটা ভাগ্যের ব্যাপার । আর এ সকল কাজ করতে গেলে অবশ্যই কোন না কোন পদ-পদবী দরকার পড়ে। এজন‌্যই আমার নির্বাচনমুখী হওয়ার ইচ্ছা পোষন কর‌ছি । আমি এ পদে নির্বাচিত হলে আমার সর্বোচ্চটা দিয়ে আমি চেষ্টা করব উন্নয়ন করার। আ‌মি আমার অবস্থান থে‌কেও যতটুকু পার‌ছি মানু‌ষের কল‌্যা‌নে কাজ করার চেষ্টা কর‌ছি । আ‌মি সক‌লের সহ‌যোগীতা কামনা কর‌ছি ।