ঝিনাইদহ প্রতিনিধি-

ঝিনাইদহের সদর উপজেলার গান্না ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানকে কারাগারে পাঠিয়েছে ঝিনাইদহ অতিরিক্ত জেলা জজ প্রথম আদালত।ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা জাকির হোসেন শান্তি মার্ডার মামলায় হাইকোর্টের জামিনে ছিলেন তিনি।

২০০৯ সালে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও নিহত শান্তির শ্বশুর সিরাজুল ইসলাম মালিথা বাদি হয়ে ঝিনাইদহ সদর থানায় এই মামলা করেন। বৃহস্পতিবার বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণের শেষ দিন ছিল।

এই দিন বিজ্ঞ আদালতে হাজির হলে ঝিনাইদহ অতিরিক্ত জেলা জজ প্রথম আদালত এর ভারপ্রাপ্ত বিচারক আয়শা আক্তার সুমি এই নির্দেশ দেন। এর আগে হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিন মালিথার জামিন বাতিল করে ২ সপ্তাহের মধ্যে বিচারিক আদালতে আত্মসমাপর্ণের নির্দেশ দেন। নাসির উদ্দিন মালিথা গান্না ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক জাকির হোসেন শান্তি হত্যা মামলার চার্জশীটভুক্ত আসামি।

২০১০ সালের ২৪ অক্টোবর পুলিশ আদালতে চার্জশীট জমা দিলে তাকে ৯ নং আসামি হিসাবে অন্তর্ভূক্ত হন। এর আগে মামলায় আটককৃত ৪ আসামি ম্যাজিস্ট্রেটের সামনে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে নাসির উদ্দিন মালিথার হত্যার সাথে সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করে।

এর পরে তিনি ২০২১ সালের ১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত দুটি মামলায় অপকৌশলে ১২টি ওয়ারেন্ট গোপন করেন। আদালতে হত্যা মামলার পলাতক আসামি হলেও তিনি প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়িয়েছেন।

আওয়ামী লীগে যোগদান করে নৌকার নমিনেশন নিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। নাসির উদ্দিন মালিথা কোটচাঁদপুর উপজেলার তালিনা গ্রামের মৃত শহর আলী মালিথার ছেলে।